ক্যালসিয়াম কীভাবে খাবেন এবং ভালো থাকুন


ওষুধের দোকান থেকে কিনে ক্যালসিয়াম বড়ি
খান অনেকেই। একটু হাত-পা ব্যথা, শরীর
ম্যাজম্যাজ বা বয়স হয়েছে বলেই ক্যালসিয়াম
খেতে হবে, এমন কোনো কথা নেই। কেননা
আমাদের দৈনন্দিন নানা খাবারেও পর্যাপ্ত
পরিমাণে ক্যালসিয়াম আছে। প্রতিদিন এ রকম
খাবার থেকেই আমরা ক্যালসিয়ামের চাহিদা
পূরণ করতে পারি।
ক্যালসিয়াম নামের খনিজ উপাদানটি আমাদের
হাড় ও দাঁত শক্ত করে, ক্ষয় রোধ করে। স্নায়ু,
হৃৎস্পন্দন, মাংসপেশির কাজেও ক্যালসিয়াম
দরকার হয়। এটির অভাবে হাড়ক্ষয় বা
অস্টিওপোরাসিস রোগ হতে পারে। তাই
ক্যালসিয়ামযুক্ত খাবারগুলো কী তা জেনে
নেওয়া উচিত।
দুধ, দই, পনির, কাঁচা বাদাম, সয়াবিন, আখরোট,
সামুদ্রিক মাছ, কাঁটাযুক্ত ছোট মাছ, কালো ও
সবুজ কচুশাক, শজনে পাতা, পুদিনা পাতা,
সরিষাশাক, কুমড়ার বীজ, সূর্যমুখীর বীজ, চিংড়ি
শুঁটকি, ডুমুর ইত্যাদি হলো উচ্চ ক্যালসিয়ামযুক্ত
খাবার। ১০০ গ্রাম দুধে ক্যালসিয়াম আছে ৯৫০
মিলিগ্রাম, একই পরিমাণ পাবদা মাছে ৩১০
মিলিগ্রাম, সামুদ্রিক মাছে ৩৭২ মিলিগ্রাম,
শজনে পাতায় ৪৪০ মিলিগ্রাম, ট্যাংরা মাছে
২৭০ মিলিগ্রাম।
তবে অন্ত্রে ক্যালসিয়াম শোষণে বাধা দেয়
কিছু জিনিস, যেগুলো ক্যালসিয়ামযুক্ত
খাবারের সঙ্গে না খাওয়াই ভালো। যেমন
উচ্চমাত্রার চর্বি ও অক্সালিক অ্যাসিডযুক্ত
খাবার। চকলেট, পালংশাক, কার্বোনেটযুক্ত
পানীয় ইত্যাদিও ক্যালসিয়াম শোষণে বাধা
দেয়। কিন্তু ক্যালসিয়াম শোষণে সাহায্য করে
ভিটামিন এ, সি এবং ডি। আয়রন ও
ম্যাগনেসিয়ামযুক্ত খাবারও ক্যালসিয়ামের
কাজে সাহায্য করে।
পুষ্টিবিদ

Add a Comment