আপনার মানসিক স্বাস্থ্য ঠিক রাখার ৫ সহজ উপায়

ভালো স্বাস্থ্য মানে মানসিক আর শারীরিক দুই
দিক থেকেই সুস্থ বা ঠিক থাকা। অনেকের
বেলায় দেখা যায়, শরীর ঠিক থাকলেও
মানসিক স্বাস্থ্যের বিষয়টিকে একেবারেই
গুরুত্ব দেন না। আমাদের দৈনন্দিন জীবনযাপন
ঠিকমতো চালিয়ে নিতে মানসিক স্বাস্থ্যের
ওপর গুরুত্ব দেওয়া কিন্তু অনেক গুরুত্বপূর্ণ।
জীবনযাপনে সামান্য কিছু পরিবর্তন এনে সব
মানসিক সমস্যা দূরে ঠেলে মনকে ফুরফুরে করে
তুলতে পারেন। এ রকম সহজ কয়েকটি নিয়ম মেনে
চলতে পারেন।
নিয়মমাফিক চলুন
দৈনিক কাজের একটি নিয়ম দাঁড় করান। সময়ের
কাজ সময়ে করুন। নিয়ম মেনে খাওয়া, ঘুম থেকে
জাগা বা বিছানায় যাওয়ার বিষয়টি মানসিক
স্বাস্থ্য ঠিক রাখার জন্য দরকারি। যাঁরা নিয়ম
মেনে চলেন, তাঁদের মানসিক ও শারীরিক দিক
থেকে সুস্থ থাকার হার বেশি বলেই গবেষণায়
দেখা গেছে।
ব্যায়াম করুন
মানসিকভাবে ভালো থাকতে শারীরিকভাবে
সুস্থ থাকাটাও জরুরি। শরীরকে সক্রিয় রাখতে
সামর্থ্য অনুযায়ী ব্যায়াম করুন। ব্যায়াম করলে
সুখ হরমোন নিঃসৃত হয়। মানসিকভাবে হালকা
বোধ করতে বা মন ভালো রাখতে নিয়মিত
ব্যায়ামের চর্চা করে যান।
পুষ্টিকর খাবার খান
পুষ্টিমানসম্পন্ন ও সুষম খাবার খাবেন। খাবারের
তালিকায় বেশি করে ফল আর সবজি রাখুন।
মস্তিষ্ককে উদ্দীপিত রাখে এমন খাবার,
বিশেষ করে বাদাম কিংবা পালংশাকের মতো
খাবার খান।
যন্ত্রের ব্যবহার সীমিত করুন
এখনকার সময় মানুষের হাতে হাতে মোবাইল
ফোন কিংবা মনোযোগ কেড়ে নেওয়া নানা
যন্ত্র রয়েছে। মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখতে
যতটা সম্ভব যন্ত্রের ব্যবহার সীমিত করুন। রাতে
ঘুমাতে যাওয়ার এক ঘণ্টা আগে মোবাইল
ফোনসহ যন্ত্র ব্যবহার বাদ দিন। এমনকি দিনের
বেলাতেও যন্ত্র যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন।
সক্রিয় থাকুন
সংবাদপত্র পড়ে, পাজল মেলানো, ক্রসওয়ার্ড
সমাধান করার মতো নানা কাজে মস্তিষ্ককে
ব্যস্ত রাখুন। মস্তিষ্ক সক্রিয় থাকলে
স্মৃতিশক্তি উন্নত হবে, এমনকি শেখার দক্ষতা
বাড়বে। তথ্যসূত্র: জিনিউজ।

Add a Comment