Hi, Guest! Login Register

বিটিআরসির গণশুনানি মোবাইল ফোন গ্রাহকদের মুখে মুখে অভিযোগ

HomeMobile Tipsবিটিআরসির গণশুনানি মোবাইল ফোন গ্রাহকদের মুখে মুখে অভিযোগ


‘আমার নম্বর সবার কাছে যাবে কেন? আমাকে
কেন ম্যাঙ্গো জুসের অফারের কথা বলবে? কেন
ইংরেজি শেখার অফার দেবে? প্রতিদিন কেন
অপ্রয়োজনীয় এসএমএস আসবে যা হয়রানির
শামিল? এই অভিযোগগুলো মোবাইল গ্রাহক
রাফায়েল কুমারের। রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং
ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (আইইবি) মিলনায়তনে
আয়োজিত গণশুনানিতে রাফায়েলের মতো এমন
অসংখ্য অভিযোগ নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার হাজির
হয়েছিলেন তিন শতাধিক গ্রাহক।
দেশের মোবাইল অপারেটরদের সেবার মান,
সেবা পেতে গিয়ে হয়রানি, বিশেষ করে কল ড্রপ,
ভয়েস কল ও ইন্টারনেটের বিভিন্ন বান্ডেল
প্যাকেজ ও মূল্য সম্পর্কে অভিযোগ বা সরাসরি
জনগণের মতামত জানতে প্রথমবারের মতো
গণশুনানির আয়োজন করে বাংলাদেশ
টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।
বেশির ভাগ গ্রাহকই কল ড্রপ ও বিভিন্ন
প্যাকেজের (ভয়েস, ডাটা, বান্ডেল) মূল্য
সম্পর্কে অভিযোগ জানান। এ ছাড়া
বায়োমেট্রিক সিম নিবন্ধন, সাইবার অপরাধ,
মোবাইল ফোনে হুমকি, মোবাইল ফিন্যানশিয়াল
সার্ভিস, মোবাইল অপারেটরদের কলসেন্টারের
মাধ্যমে সেবা-সংক্রান্ত অভিযোগ করা হয়।
গণশুনানিতে সেবাপ্রত্যাশী মোবাইল গ্রাহক
মহিউদ্দিন বলেন, ‘মানুষ মোবাইল ব্যবহার
করাকালীন ট্রেনে বা যানবাহনে চাপা পড়ে
আহত হচ্ছে, মারা যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে
তাদের কেউ ইনস্যুরেন্সের কোনো টাকা পাচ্ছে
না। অথচ মোবাইল অপারেটরগুলো প্রতিটি
গ্রাহকের ইনস্যুরেন্স করার জন্য কথা দিয়েছে
এবং তা আজও বাস্তবায়ন করা হয়নি।’
মোবাইল রিচার্জ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি
আমিনুল ইসলাম বুলু বলেন, ‘দেশে প্রায় ১০ লাখ
ব্যক্তি মোবাইল রিচার্জ করার কাজের সঙ্গে
যুক্ত। এর মাধ্যমে কম্পানিগুলো কোটি কোটি
টাকা আয় করছে। অথচ ১৫ বছর আগে আমরা যে
হারে কমিশন পেতাম, আজও তাই রয়ে গেছে। এ
ব্যাপারে বিটিআরসির কাছে বারবার অভিযোগ
করেও কোনো প্রতিকার মেলেনি।’
শর্তসাপেক্ষে চালু হওয়া সিটিসেল গ্রাহক
রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘সিটিসেল বন্ধ করার সময়
বিটিআরসি গ্রাহকদের স্বার্থ দেখেনি।
সিটিসেলের সঙ্গে বিটিআরসির কোনো সমস্যা
থাকলে তা বন্ধ করে দেওয়া কোনো উত্তম পন্থা
নয়। বিটিআরসি যদি তা বন্ধ করে, তবে
টেলিটকের সঙ্গে সিটিসেল গ্রাহদের সমন্বয়
করা উচিত ছিল। অথবা সিটিসেল থেকে
গ্রাহকদের ক্ষতিপূরণ নিশ্চিত করার দায়িত্ব
বিটিআরসির।’
দেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের সঙ্গে বেমানান
বিজ্ঞাপনগুলোর ব্যাপারে আপত্তি তোলেন
সেবাপ্রত্যাশী আবুল হাসনাত ভূঁইয়া। তিনি বলেন,
‘এমন কিছু বিজ্ঞাপন টিভিতে প্রচার করা হয়, যা
আমাদের সংস্কৃতির সঙ্গে মানানসই না। এসব
দেখভালে বিটিআরসির উদ্যোগ নেওয়া উচিত।’
সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইশরাত হোসেন বলেন,
‘রাস্তার মোড়ে মোড়ে বিভিন্ন কম্পানির
মোবাইল সিম বিক্রি করা হচ্ছে। এতে সাধারণ
মানুষের নিরাপত্তা হুমকির সম্মুখীন। কারণ একজন
সাধারণ মানুষ নিজের এনআইডি দিয়ে সিম কিনে
নিয়ে যাচ্ছে। তার দেওয়া তথ্য দিয়ে আরো সিম
নিবন্ধন করা হচ্ছে। এসব কারণে অপরাধীর বদলে
সাধারণ মানুষের ভোগান্তি বাড়বে।’
মোবাইল নেটওয়ার্কের বিভিন্ন সমস্যার কথা
তুলে ধরেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের
ছাত্রী সুফিয়া বেগম। তিনি বলেন,
‘বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে কোনো কোনো মোবাইল
অপারেটরের নেটওয়ার্ক নেই বা খুব দুর্বল। কথা
বলতে গেলে হল থেকে বের হয়ে কথা বলতে হয়।
এভাবে প্রতিদিন বাইরে গিয়ে কথা বলা কতটা
সম্ভব? গণশুনানির অনুষ্ঠানে বিটিআরসির
চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, ‘আজ
গ্রাহকদের মনের কথাগুলো শুনেছি। আগামী ছয়
মাসের মধ্যে আরেকটি গণশুনানির আয়োজন করা
হবে। এ আগে এসব অভিযোগের সুরাহা করা হবে।’
পাশাপাশি বিভাগীয় পর্যায়ে এমন গণশুনানির
আয়োজন করা যায় কি না তা নিয়ে চিন্তাভাবনা
করা হবে বলেও জানান তিনি।

Share this post on Social Network:
Google+ Pinterest

About Author

Total Posts [347]
mm
› Total Post: [347]

শিখাতে এসেছি তবে মাঝে মধ্যে শিখাতে গিয়ে শিখে আসি!!!!
আমি Tipsmela এর পাশে আছি।


Leave a Reply

You Must be Login or Register to Submit Comment.

Developed by MD Abdullah | Copyright 2016-17 TipsMela.Com