রোহিঙ্গায় আবারো ১১ নৌকা ফেরত পাঠাল বিজিবি

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনের শিকার হয়ে রাখাইন রাজ্য থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা বোঝাই ১১টি নৌকা ফেরত পাঠিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। অবৈধ অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগে তানিয়া আক্তার (২২) নামের এক দালালকে আটক করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাত নয়টা থেকে আজ শনিবার সকাল ছয়টা পর্যন্ত কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার পাঁচটি সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে অনুপ্রবেশের সময় রোহিঙ্গাদের নৌকাগুলো ফেরত পাঠানো হয়। টেকনাফ-২ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আবুজার আল জাহিদ প্রথম আলোকে বলেন, টেকনাফ উপজেলার নাফ নদীর পাঁচটি পয়েন্ট দিয়ে রোহিঙ্গা বহনকারী ১১টি নৌকার প্রতিটিতে ১৫ থেকে ১৮ জনের মতো রোহিঙ্গা শিশু, নারী ও পুরুষ ছিল। বিজিবির সদস্যদের বাধার মুখে নৌকাগুলো মিয়ানমারে ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছে। অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আবুজার আল জাহিদ বলেন, গতকাল দিবাগত রাত আটটার দিকে উপজেলার হোয়াইক্যং মিনা বাজার এলাকার মুফিজ আলমের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় খাটের নিচ থেকে ছয়জন রোহিঙ্গাসহ বাড়ির গৃহবধূ তানিয়া আক্তারকে (২২) আটক করা হয়। আজ সকালে রোহিঙ্গাদের মিনা বাজার এলাকার সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে মিয়ানমারের ফেরত পাঠানো হয়। রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগে আটক তানিয়াকে থানায় সোপর্দ করা হয়। কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল ইমরান উল্লাহ সরকার বলেন, একই দিন উখিয়া সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টার সময় মিয়ানমারের এক রোহিঙ্গাকে বাধা দেওয়া হয়েছে। টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল মজিদের ভাষ্য, আটক নারীকে দুপুরের দিকে কক্সবাজার বিচারক হাকিম আদালতে পাঠানো হচ্ছে।

Add a Comment